- জাতীয়, নরসিংদীর খবর, পলাশ, বেলাবো, মনোহরদী, রায়পুরা, লিড নিউজ, শিবপুর, সারাদেশ

আইএমইডি ‘র সচিব পদে পদোন্নতি পেলেন আবু হেনা মোরশেদ জামান

নিজস্ব প্রতিবেদক
কেন্দ্রীয় ঔষধাগারের পরিচালক (অতিরিক্ত সচিব) আবু হেনা মোরশেদ জামান (৫৬৩৯) বাস্তবায়ন পরিবীক্ষণ ও মূল্যালন বিভাগ (আইএমইডি) সচিব পদে পদোন্নতি পেয়েছেন। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের উপসচিব এবিএম ইফতেখারুল ইসলাম খন্দকার রাষ্ট্রপতি আদেশ ক্রমে প্রজ্ঞাপন জারি করেন।
স্বারক নং ০৫.০০.০০০০.১৩০.১২.০০১.২০-৫৩৪ তারিখ ২৮ অক্টোবর ২০২১ প্রজ্ঞাপনে আবু হেনা মোরশেদ জামানসহ নিম্ন বর্ণিত কর্মকর্তাবৃন্দকে সরকারের সচিব পদে পদোন্নতি প্রদানপূর্বক তাদের নামের পাশে উল্লেখিত কর্মস্থলে পদায়ন করা হয়। বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন করপোরেশনের চেয়ারম্যান ড.অমিতাভ সরকার (৫৫৯২) কে ভূমি আপীল বোর্ডের চেয়ারম্যান (সচিব), মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব ড. শাহনাজ আরেফিন এনডিসি (৫৫৩৯) কে পরিসংখ্যান ও তথ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগের সচিব, ঢাকা বিভাগের বিভাগীয় কমিশনার (অতিরিক্ত সচিব) মোঃ খলিলুর রহমান (৫৬৪২) কে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব, অর্থনৈতিক বিভাগের অতিরিক্ত সচিব ড. কাজী এনামুল হাসান এনডিসি (৫৭০৯) কে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সচিব এবং বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব সোলেমান খান (৫৭১৮) কে ভূমি সংস্কার বোডের চেয়ারম্যান (সচিব)।
সরকারের নবনিযুক্ত সচিব আবু হেনা মোরশেদ জামান এর সংক্ষিপ্ত পরিচিতিঃ
তিনি ১৯৬৭ সালে চট্রগ্রাম জেলার এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্ম গ্রহণ করেন। তাঁর পিতা মরহুম নূরুল ইসলাম কিবরিয়া এবং মা প্রফেসর ড. দিল আফরোজ বেগম। পিতা মাতার একমাত্র সন্তান আবু হেনা মোরশেদ জামান ১৯৮২ সালে কুমিল্লা বোডে এসএসসি পরীক্ষায় মেধা তালিকায় পঞ্চম স্থান এবং এইচএসসি পরীক্ষায় চতুর্থ স্থান অর্জন করেন। পরবর্তীতে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে রাজনীতি বিভাগ থেকে প্রথম শ্রেণিতে প্রথম স্থান অধিকার করে স্নাতকোত্তর ডিগ্রী লাভ করেন। তিনি ১১ তম বিসিএস পরীক্ষায় সম্মিলিত ভাবে মেধা তালিকায় প্রথম স্থান অর্জন করেন। তিনি ১৯৯৩ সালে বিসিএস (প্রশাসন) ক্যাডারে যোগদান করেন। তিনি ময়মনসিংহ জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার হিসেবে কর্মজীবন শুরু করেন। পর্যায়ক্রমে বান্দরবন, রাঙ্গামাটি, ঢাকা, ফরিদপুর ও নরসিংদীতে মাঠ প্রশাসনে কাজ করেন।
ঢাকার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক, সিনিয়র সহকারী সচিব পররাষ্ট্র, ধর্ম, যোগাযোগ, পাট ও বস্ত্র এবং মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রণালয়ে কাজ করেন। উপসচিব হিসেবে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে কাজ করেন। ইউনেস্কো জাতীয় কমিশনের সচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। নান্দনিক জেলা প্রশাসক হিসেবে অত্যন্ত দক্ষতা ও সুনামের সাথে ফরিদপুর ও নরসিংদীতে দায়িত্ব পালন করেন।
নরসিংদীর জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট হিসেবে আবু হেনা মোরশেদ জামান তাঁর সৃজনশীল নান্দনিক কাজের মাধ্যমের নরসিংদীর উন্নয়নে ব্যাপক ভূমিকা রাখেন। তিনি জনবান্ধব জেলা প্রশাসন গড়ে তুলেন। জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে সম্মুখে “আপনাকে কিভা‌বে সাহায্য করতে পারি? ম্যুরাল নির্মাণ করেন। নরসিংদীর কৃষি, শিল্প, শিক্ষা, সংস্কৃতি, ক্রীড়া ও ঐতিহ্য নিয়ে ব্যাপক কাজ করেন। তিনি জেলা প্রশাসক হিসেবে সরকার ও জনগণের মাঝে সেতুবন্ধন রচনা করেন। তাঁর কবিতার মতো বক্তৃতা শিক্ষার্থীদের সুনাগরিক হওয়ার অনুপ্রেরণা দিয়েছে। বড় হওয়ার স্বপ্ন দেখিয়েছে। নরসিংদীর মানুষকে ভালোবাসতেন, নরসিংদীর মানুষও তাঁকে ভীষণ ভালোবাসত। তাই প্রিয় মানুষটি যখন কোভিড আক্রান্ত তখন নরসিংদীবাসী সুস্থতার জন্য প্রাণ ভরে দোয়া করেছে। আজ পদোন্নতি সংবাদ শুনেও ভীষণ খুশি। যার প্রমাণ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম, মোবাইল ফোন। প্রায় ৩ বছর জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট হিসেবে দায়িত্ব পালন করে যুগ্মসচিব পদোন্নতি নিয়ে পরিবেশ মন্ত্রণালয়ে, পরবর্তীতে বাণিজ্য মন্ত্রণায়ের রফতানি উন্নয়ন ব্যুরোর সচিব, শিক্ষা মন্ত্রলায়ের ইউনেস্কোর সেক্রেটারি হিসেবে অত্যন্ত স্বচ্ছতা ও সুনামের সাথে দায়িত্ব পালন করেছেন। তিনি কেন্দ্রীয় ঔষধাগারের সিন্ডিকেট ভেংগে সরকারের কয়েকশত কোটি টাকা সাশ্রয় করেছেন। বিভিন্ন সময়ে দেশের বাইরে প্রশিক্ষণ ও সেমিনারে ভারত, দক্ষিণ কোরিয়া, অস্ট্রেলিয়া, থাইল্যান্ড, কানাডা ভ্রমণ করেন।
ছাত্র জীবনে তিনি ক্রীড়া সাংবাদিকতা ও লেখালেখির সাথে জড়িত। জাতীয় টেলিভিশন বিতক প্রতিযোগিতায় চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শাহ জালাল হলের ছাত্র নেতা হিসেবে কয়েকবার শ্রেষ্ঠ বক্তা নির্বাচিত হয়েছেন। বেশ কবছর ধরে ইউনিসেফের অর্থায়নে বাংলাদেশ টেলিভিশনে প্রচারিত ” মা ও শিশু বির্তক” প্রতিযোগিতার বিচারক প্যানেলের সভাপতিত্ব করছেন। জনপ্রিয় “আমার বন্ধু জ্ঞানী তৈল সিং ” বইয়ের লেখক।
ব্যক্তিগত জীবনে তিনি বিবাহিত এবং মাহির ও মাশফি ‘র গর্বিত বাবা। তাঁর স্ত্রী ডাঃ ফাতিমা নুসরাত জামান হলিফ্যামিলি মেডিকেল কলেজের সহকারী অধ্যাপক।
সরকারের একজন মেধাবী, সৎ, দক্ষ, সৃজনশীল
সচিব আবু হেনা মোরশেদ জামান এর প্রতি আজকের খোঁজখবর পরিবারের পক্ষ থেকে শুভকামনা রইল।