- জাতীয়, নরসিংদীর খবর, পলাশ, বিনোদন, বেলাবো, মনোহরদী, রায়পুরা, লিড নিউজ, শিবপুর, সারাদেশ

১২ ডিসেম্বর নরসিংদী মুক্ত দিবসে বিজয় কনসার্টে নরসিংদী মাতালেন ঐশী আর্ক ওয়ারফেজ

নিজস্ব প্রতিবেদক
১২ ডিসেম্বর নরসিংদী মুক্ত দিবস, নরসিংদীবাসীর জন্য গৌরবোজ্জ্বল ও স্মরণীয় দিন। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ডাকে মুক্তিযুদ্ধকালীন দীর্ঘ নয় মাস নরসিংদী জেলার বিভিন্ন স্থানে শতাধিক খন্ডযুদ্ধ হয়। মুক্তিবাহিনীর প্রবল প্রতিরোধের মুখে ১৯৭১ সালের ১২ ডিসেম্বর পাকিস্তানি বাহিনীর পরাজয়ের মধ্য দিয়ে নরসিংদী মুক্ত হয়। মঙ্গলবার  নরসিংদী হানাদার মুক্ত দিবস বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্যদিয়ে পালন করেছে নরসিংদী জেলা প্রশাসন। কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে বিজয় র‌্যালী, আলোচনা সভা ও বিজয় কনসার্ট।
নরসিংদী মুক্ত দিবস উপলক্ষে সকালে নরসিংদী সার্কিট হাউজ থেকে বর্ণাঢ্য বিজয় র‌্যালী বের করা হয়। র‌্যালীটি কোর্ট রোড প্রদক্ষিণ করে জেলা শিল্পকলা একাডেমিতে গিয়ে শেষ হয়। জেলা প্রশাসক ড. বদিউল আলমের নেতৃত্বে বিজয় র‌্যালীতে বীর মুক্তিযোদ্ধা, শিক্ষক-শিক্ষার্থী, সরকারী-বেসরকারি বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন শ্রেণি পেশার লোকজন অংশগ্রহণ করেন।
পরে জেলা শিল্পকলা একাডেমিতে অনুষ্ঠিত হয় আলোচনা সভা। স্থানীয় সরকার শাখার উপ পরিচালক মৌসুমী সরকার রাখীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, নরসিংদী জেলা প্রশাসক ড. বদিউল আলম। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, নরসিংদী পুলিশ সুপার মো: মোস্তাফিজুর রহমান, সিভিল সার্জন ডা. মো: নূরুল ইসলাম,  সেক্টর কমান্ডারস ফোরাম ৭১ জেলা শাখার সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মোতালিব পাঠান, নরসিংদী সরকারী কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ মোহাম্মদ আলী ও গোলাম মোস্তাফা মিয়া, নরসিংদী প্রেসক্লাব সভাপতি মো: নূরুল ইসলাম।
এছাড়া নরসিংদী হানাদার মুক্ত দিবস উপলক্ষে মোসলেহ উদ্দিন ভূইয়া স্টেডিয়ামে বিজয় কনসার্ট এর আয়োজন করেছে জেলা প্রশাসন।
নরসিংদী মুক্ত দিবস স্মরণীয় করে রাখতে নরসিংদীতে প্রথম বারের মতো জেলা প্রশাসনের আয়োজনে সন্ধ্যায় বিজয় কনসার্টে দেশসেরা ব্যান্ড ও একক শিল্পীরা সংগীত পরিবেশন করেন।  ঐশী, আর্ক ও ওয়ারফেজ  নরসিংদী মাতিয়েছেন।
সমাপনী অনুষ্ঠানে বিভিন্ন পটাকাসহ আকর্ষণীয় রং বেরঙের বর্ণিল আতশবাজি ফাটানো হয়। এ আতশবাজির আলোয় নরসিংদীর মুসলেহ উদ্দিন ভূঁইয়া স্টেডিয়াম এলাকা আলোকিত হয়ে উঠে।
উল্লেখ্য, ১৯৭১ সালের ১২ ডিসেম্বর বীর মুক্তিযোদ্ধাদের প্রবল প্রতিরোধের মুখে পুরোপুরি শত্রুমুক্ত হয় নরসিংদী জেলা। সমাপ্তি ঘটে ৯ মাসের শ্বাসরুদ্ধকর সশস্ত্র মুক্তিযুদ্ধের। জেলার বিভিন্ন স্থানে শতাধিক খন্ডযুদ্ধে পাকিস্তানি সৈন্যদের নির্মমতার শিকার হয়ে শহীদ হন ১১৬ জন বীর সন্তান।